কুংফু পান্ডা ১ (2008) ফুল মুভি রিভিও

      কুংফু পান্ডা ১ (2008) ফুল মুভি রিভিও

হ্যালো বন্ধুরা আজ আমি কুম্ফু পান্ডা মুভিতে এক্সপ্লেইন করবো এই মুভিটার রিলিজ হয় 2008 সালে এবং এর আইএমডিবি রতিং 7.7 সফটওয়্যার তোমরা যদি এই মুভিটির পার্ট গুলো দেখতে চাও তাহলে আমাকে অবশ্যই কমেন্ট করে জানাও এই ভিডিওটিতে লাইক করো আর এরকম ভিডিও আরো দেখার জন্য চ্যানেলটিকে সাবস্ক্রাইব করো তাহলে চলো আজকে ভিডিওটি শুরু করা যাক মুভি শুরুতে দেখা যায় একটা গোলগাল চেহারার পান্ডার স্বপ্ন দেখছে যে সে একজন কুংফু ওয়ারিয়র হয়ে গেছে এরই মধ্যে তার ঘুম ভেঙে যায় আর সে বাস্তবে ফিরে আসে চায়নার একটি সুন্দর ও শান্ত উপত্যকায় তার বাবার সাথে থাকত সেখানে তার বাবার সাথে একটি নুডুলস সব চালাতে ছোট বেলা থেকে স্বপ্ন ছিল যে সে শিখবে এবং ফিউরিয়াস ফাইভ যোদ্ধাদের মত একজন যোদ্ধা হবে এই ফেসপ্যাকটি যোদ্ধা দল যার মধ্যে টাইগ্রেস মানচিত্রের বাইপাস ওমেন্স নামক যুদ্ধাস্ত্র এবং এইতো তাদের গুরু ছিল সে খুব ছোটবেলার স্বপ্ন স্বপ্নই থেকে যায় বাবার দোকান সামলাতে.

কুংফু পান্ডা ১ (2008) ফুল মুভি রিভিও

তারার কুংফু শেখা হয়ে উঠছিল না এরপর সেন্টিমিটার গ্র্যান্ডমাস্টার অবক্ষয়ের দিকে একজন করছিল তিনি মাস্টার্শিপ ওকে ডেকে পাঠিয়েছিলেন শিল্পকে তিনি জানান এবং একদিন জেলখানা থেকে মুক্তি পাবে এবং সেই তাদের এই উপত্যকায় আক্রমণ করবে গ্র্যান্ডমাস্টার শিফুজি জানায় ডায়লগ এখানে আসবে ড্রাগন্স করেই তাদের থেকে নিয়ে নিতে ড্রাগণ স্কুল হলো এমন একটি ক্ষমতা সম্পন্ন স্ক্রল যেটা পেলে অনেক শক্তিশালী হয়ে ওঠা যায় আর এই স্কুলটির অধিকারী একমাত্র ড্রাগণ ওয়ারিয়র আর ওই ড্রাগন ফ্রুটের যে পাবে সেই যোদ্ধাকে কেউ কখনো হারাতে পারবে না এসব শুনে মাস্টার্শিপ খুব ভয় পেয়ে যায় আর তখন এসে তোর গার্ড কে ডেকে সমস্ত সেনার প্রটেকশন বাড়ানোর নির্দেশ দেয় গ্র্যান্ডমাস্টার তখন শিল্পকে বলে তাই আমাকে আটকানোর একটাই রাস্তা আছে এর জন্য আমাদের একজন ড্রাগণ ওয়ারিয়র কে খুঁজে বের করতে হবে শিল্পনগরের পরামর্শ মতো একটি প্রতিযোগিতার আয়োজন করে তাদের বিশ্বাস ছিল যে এই প্রতিযোগিতার মাধ্যমে তারা ড্রাগণ ওয়ারিয়র কে খুঁজে.

 

পাবে অন্যদিকে এই প্রতিযোগিতার খবর সব জায়গায় পৌঁছে গিয়েছিল প্রতিযোগিতার এই নিউজটি পেয়ে পদার্থ গানের সব কাস্টমারকে সেই প্রতিযোগিতা দেখতে পাঠিয়ে দেয় এবং সে ওই প্রতিযোগিতা দেখতে যাবে বলে তৈরি হচ্ছিল এমন সময় পূর্বাভাস এখানে আসে এবং একটি নুডলস পড়তে ঠেলাগাড়ি ওকে ধরিয়ে দিয়ে বলে প্রতিযোগিতায় গিয়ে লুডুস বিক্রি করার জন্য এরপর পরই ঠেলাগাড়ি নিয়ে প্রতিযোগিতা স্থানে পৌঁছলে সে দেখতে পায় তাকে অনেকগুলি সিঁড়ি বেয়ে উঠে সেখানে পৌছতে হবে তখন ওই ঠেলাগাড়ি সেখানে ফেলে রেখে সিঁড়ি বেয়ে উপরে উঠে যায় অন্যদিকে গ্র্যান্ডমাস্টার শিফুজি জানায় আজ প্রতিযোগিতায় যে ড্রাগণ ওয়ারিয়র হবে সেই শুধুমাত্র উপত্যকার নয় সেখানকার সকল মানুষের কল্যাণের কারণ হবে এদিকে যতক্ষণে সিঁড়ি বেয়ে উপরে উঠে মঠের দরজা ততক্ষনে বন্ধ হয়ে গিয়েছিল একদিকে যখন ফিউরিয়াস পায় তাদের অসামান্য প্রতিভার প্রদর্শন করছিল তখন সেই প্রতিযোগিতা দেখতে যাওয়ার আপ্রাণ চেষ্টা করে চলেছিল তখন কোন রাস্তা না পেয়ে.

 

লেখাটায় অনেক বার করে আনে আর সেগুলি নিজের শরীরে বেঁধে নেয় এরপর সে তাতে আগুন লাগিয়ে দেয় এতে সে আকাশে উড়ে গিয়ে প্রতিযোগিতার মধ্যে গিয়ে পড়ে এবং তখনই সে অজ্ঞান হয়ে যায় জ্ঞান ফিরছে দেখতে পায় গ্র্যান্ডমাস্টার ওগো একটি আঙ্গুল পর থেকে করে কিছু বোঝাতে চাইছে এই সময় গ্র্যান্ডমাস্টার বউকে ড্রাগণ ওয়ারিয়র এর জন্য বেছে নেয় এসব দেখে সেখান থেকে সকলে ভীষন শক্ত হয়ে যায় তারা ভাবে ময়দানে এত বড় বড় যোদ্ধা থাকতেও গ্র্যান্ডমাস্টার কে কেন ড্রাগণ ওয়ারিয়র হিসেবে বেছে নিল তবে প্রতিযোগিতায় আসা সকল দর্শক ভীষণ খুশি ছিল গ্র্যান্ডমাস্টারের নির্ণয় ফিউরিয়াস পাঁচবার প্রত্যেকে তখন মাস্টার শিশুর কাছে এসে ক্ষমা চায় তারা শিল্পকে জানায় তারা মাস্টার শিশুর মুখ উজ্জ্বল করতে পারেনি এর জন্য তারা দুঃখিত অন্যদিকে মাস্টারকার্ড দিনকে দেখা যায় সেই ভুলটাকে যেই জেলখানায় রাখা হয়েছিল সেখানে যায় আর সেখানকার চিপকে মাস্টার শেফ অর মেসেজ দেয় মেসেজটি পরার পর চীনকে জেলের ভেতরে নিয়ে যায়.

 

কাকে দেখায় তাই লঙ্কায় তারা কতটা পাহারা দিয়ে রেখেছে সিকিউরিটি চেক করতে সিলিং ক্যাটালগ এর কাছে নিয়ে যায় তখন চুপ করে বলে যে গ্র্যান্ডমাস্টার ড্রাইভারকে খুঁজে নিয়েছে আর মাস্টার্শিপ রতাতে ড্রাগণ সিটি দেবের এর পরদিন সেখান থেকে চলে আসে আর তখনই সিং-এর একটা বাল খসে ডায়লগ এর কাছে উড়ে গিয়ে পরের তাইলং সেটা তুলে নিয়ে নিজের কাছে রেখে দেয় অন্যদিকে বউকে একটা বড় হল ঘরে নিয়ে যাওয়া হয় সেখানে রকম ফড়িয়াদের অস্ত্র রাখা ছিল বউয়ের কাছে এটা একদম আলাদা অনুভূতি ছিল সেগুলি দেখতে দেখতে খুশীতে সারাঘর এদিক ওদিক করতে শুরু করে এই সময় তার হাতে লেগে একটা পাথরের বাটি মাটিতে পড়ে ভেঙে যায় তখনই সেখানে মাস্টার্শিপ সেখানে চলে আসে আর বৌয়ের উপর রাগ করে বলে তুমি ড্রাগণ ওয়ারিয়র হয়ে যাও নি তোমাকে শুধুমাত্র জুস করা হয়েছে এর জন্য অফ ড্রাগণ ওয়ারিয়র তুমি তখনই হবে যখন তুমি ওই ট্রান্সপোর্টে পড়বে এরপর মাস্টার শিল্পকে নানা ভাবে অপমান করতে থাকে তখন পব.

 

লেগে যায় তার ওপর আর সেই শিশুকে মারতে যায় ঠিক তখনই শিপ উপর একটা আঙুল ধরে তাকে বসা নিয়ে আসে এরপর শিল্পকে একা ট্রেইনিং রুমে নিয়ে যায় সেখানে সব অডিও রেকর্ডিং করছিল সেই প্রকল্পকে বলে কোন প্রদর্শন করে দেখাতে পৌত কনফিউশনস ফাইলের সাথে ট্রেনিং করতে গিয়ে নিজেকেই ঘায়েল করে ফেলে এসব দেখে মাস্টার্শিপ অভিসন্ধি পয়েন্ট হয় এরপর রাত হতে তারা নিজেদের রুমের দিকে রওনা হয় রাস্তায় তোকে নিয়ে তারা মজা করতে শুরু করে আর তাকে অপমান করে এসব এবং খুব দুখী হয়ে যায় এরপর পুলিশের রুম খুঁজতে খুঁজতে ভুল করে ট্রেনের রুমে ঢুকে পড়ে তখন এক্সাইটেড হয়ে যায় আর তাকে বলে আমি তোমার অনেক বড় ফ্যান কিন্তু গ্রীন তাকে অপমান করে সেখান থেকে ভাগিয়ে দেয় বাইরে বেরোতে পৌঁছায় ড্রেসের মুখোমুখি হয় তাকে বলে তোমার মতন লুজ এখানে কোন জায়গা নেই এসব অপমান শুনে পর রুম থেকে বেরিয়ে গিয়ে একটা গাছ তলায় গিয়ে বসে পড়ে এরপর সেখানে অগ্রে আসে আর বউকে উদাস থেকে তার কাছে জানতে চাই কি হয়েছে তার.

 

তখন তাকে জানায় সকালে উঠতে বসতে পোকা অপমান করছে আর এখানে ভালো লাগছে না তার তাই সে তার বাবার কাছে ফিরে যেতে চায় বইয়ের কথা শোনার পরও গল্পকে বলে সবার কথায় মনোনিবেশ না করে তুমি তোমার স্বপ্নের কথা ভাবো এবং নিজের স্বপ্ন পূরণের জন্য যথাসাধ্য চেষ্টা করো অন্য দিকে এবং পালক এর সাহায্যে তার হাত ও পায়ের সকল তালা খুলে ফেলে এই সময় সেখানে চলে আসে আর ডায়লগ এর উপর অ্যাটাক করে দেয় কিন্তু ততক্ষনে বন্দীদশা থেকে মুক্ত হয়ে গিয়েছিল সে 34 সেনাদের আক্রমণ প্রতিরোধ করে এই সময় শ্রীলংকা আটকানোর জন্য জেলের গুহার দেওয়াল ভেঙে দেয় কিন্তু তাতে তিনি নিজেই তার দলবল নিয়ে সেখানে ভেসে যায় এরপর চিপস সাদা রংয়ের যুদ্ধ শুরু হয় ফাইনালে হারিয়ে দেয় তারপর তাকে বলে মাস্টার্শিপ ওকে কে জানাতে যেটা এলাম ফিরে আসছে সে তার প্রতিশোধ পূর্ণ করে সবাইকে হত্যা করবে অন্যদিকে শিবপুরের কামরায় গিয়ে খুশি হয়ে যায় কারণ সেখানে ছিল না সেই প্রভাব ছিল হয়তো.

 

সেখান থেকে পালিয়ে গেছে এরপর তারা প্রতিদিনকার মত তাদের ট্রেনিং এর জন্য টেম্পারেচার কিন্তু সেখানে পৌঁছে তার শক্ত হয়ে যায় একা একাই সেখানে ট্রেনিং কোর্স ছিল এটা দেখে ভীষণ বিরক্ত হয় তখন সে ফুপুর মনোবল ভাঙার জন্য সরি অর্দের সাথে ফাইট লাগিয়ে দেয় ও কিছুই জানতো না এর জন্য সে তাদের কাছে বেদম মার খেতে থাকে এরপর শিখুন নিজে এসে পৌঁছাতে শুরু করে কিন্তু সে যতবার তোকে মেরে মাটিতে ফেলে দেয় ও ততোবারই উঠে দাঁড়ায় আর ফাইট করতে থাকে তখন সে খুব রেগে যায় আর পকেটে টেম্পল এর উপর থেকে ফেলে দেয় এতে ভীষণভাবে আহত হয় এরপর ভাই পাড়ার মেন্টিস তোকে রুমে নিয়ে এসে তার শুশ্রূষা করতে শুরু করে তখন তারা বউকে বলে শিপু কখনো এরকম বদমেজাজি ছিল না এর মধ্যে টাইগার সেখানে আসে আর সেই পোকেমন এর ব্যাপারে বলে তাই গ্রেস বলে ইউ আর ট্রায়িং বর্তমানে তাদের অনেক বড় শত্রু কিন্তু একসময় ডায়লগ শিশুর কাছে ট্রেনিং নিয়ে ছেলে ছেলের মতো দেখতো একদিন রাগের প্রতিযোগিতা.

 

তাইলে অংশ নেয় কিন্তু সেই সেই প্রতিযোগিতায় পরাজিত হয় বৃষ্টি না পেলে তখন ভীষণ রেগে যায় আর সেই সবার উপর একটা করে দেয় কিন্তু ওই তখন তাকে পরাজিত করে তাকে বন্দী বানায় এরপর থেকেই শিল্প সম্পূর্ণ বদলে গিয়েছে কারণ সে যাকে ছোট থেকে মানুষ করল ট্রেনিং দিয়ে জুতা বানানো শুধুমাত্র ক্ষমতার লোভে সে তার সব সম্পর্ক ভেঙে তাতেই মারতে গিয়েছিল এরপর শিবু অনেক কঠোর হয়ে যায় আসে কাউকে তার মত করে কুংফু শেখায় না এরপর শিশুর কাছে আসে আর তাকে ডায়লগ এর মেসেজ দেয় খোঁজখবর নিও ঘরের কাজে যায় আর তাকে সব কথা বলে এসব শুনে অজ্ঞান জানায় তাকে যুদ্ধে কে পরাজিত করতে পারে তাহলে সে হলো পর আর বউকে যদি তার যোগ্য করে তুলতে পারে সেটা হল তুমি এটা বলে অজ্ঞতার হাতে লাঠি কাশিপুর হাতে তুলে দিয়ে অদৃশ্য হয়ে যায় অন্যদিকে পৌরসভাকে সুস্বাদু সব দেশ বানিয়েছিল এই সময় তাদের মধ্যে খুব ভালো বন্ধুত্ব হয়ে যায় সেই সময় পৌরসভার সামনে শিবপুর নকল করে দেখ.

 

থাকে আর তখনই মাস্টার্শিপ সেখানে চলে আসে এবং তাদের সকলকে জানায় এবার ডায়লগ জেল থেকে পালিয়েছে এর সাথে সূত্র জানায় গ্র্যান্ডমাস্টার ওগো আর তাদের মধ্যে নেই তখন বলে এই মুহূর্তে ডায়লগে আটকানোর জন্য তাদের একজন ড্রাগণ ওয়ারিয়র এর খুবই দরকার কিন্তু পসিফন কথা শুনে সেখান থেকে ভয় পালায় সেই সময়সীমা ছুটে গিয়ে ওকে আটকায় কিন্তু ও বলে তার মধ্যে এত ক্ষমতা নেই যে সে এবার ডায়ালগ এর সাথে যুদ্ধ করে সেইসময় দুজনের মধ্যে হাতাহাতি শুরু হয়ে যায় টাইগ্রিস তখন দূরে দাঁড়িয়ে এইসব গুলো লক্ষ্য করছিল তখন সে মনঃস্থির করে সেটাই লং এর সাথে ফাইট করবে এরপর সেই তার উদ্দেশ্যে বেরিয়ে পড়ে তখন ফিউরিয়াস ফাইভের বাকি সদস্যরাও টাইগ্রিস কে ফলো করে তার সাথে চলে যায় অন্যদিকে শিল্প কিচেনে গিয়ে দেখতে পায় ওসব জিনিস আছে তখন সেই বুঝতে পারে পোহাবার খুঁজছে শিল্পকে বলে মাংসের বিস্কিট আলমারির উপরে রাখা আছে এসব দেখে শিপু দরজার আড়াল থেকে লক্ষ করে পথে-ঘাটে শরীর নিয়ে.

Leave a Comment